সাক্ষাতকার
ইশতেহারে পরিবহন শ্রমিকের অধিকার চাই
  14, December, 2018, 12:04:48:AM

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রতিটা রাজনৈতিক দল যেনো তাদের নির্বাচনী ইশতেহার পরিবহন শ্রমিক বান্ধব করে প্রনয়ণ করে।’ কথাগুলো বলছিলেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ওসমান আলী। 

তিনি দীর্ঘদিন যাবত পরিবহন শ্রমিকদের অধিকার ও স্বার্থ নিয়ে কাজ করছেন।

ওসমান আলী বলেন, প্রতিটা রাজনৈতিক দলের কাছে আমাদের জোর দাবি তারা যেনো পরিবহন শ্রমিক বান্ধব নির্বাচনী ইশতেহারে প্রণয়ন করে। দেশের পরিবহন শ্রমিকরা যাত্রীদের সেবা দিয়ে থাকে এবং পণ্য পরিবহন করে অর্থনৈতিক উন্নয়নে দেশকে যোগান দিয়ে যাচ্ছে। দেশের কোথাও কোনো সড়ক দুর্ঘটনা হলে পরিবহন শ্রমিকের ওপর দোষ চাপানো হয়। শ্রমিকদের দায়ী করা হয়। সড়ক দুর্ঘটনা শুধু শ্রমিকদের কারণে ঘটে না। একটি সড়ক দুর্ঘটনা নানাবিধ কারণে ঘটে থাকে।

পরিবহন শ্রমিকদের এ নেতা বলেন, আমাদের দেশে হাইওয়েতে দ্রুতগতি ও অল্পগতির গাড়ী এক সাথে চলে। আমাদের দাবি হাইওয়েতে অল্পগতির গাড়ীর জন্য পৃথক-পৃথক লেনের ব্যবস্থা করা। পৃথিবীর কোনো দেশে সড়ক দুর্ঘটনার শাস্তি সর্বোচ্চ যাবত-জীবন নেই। আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতেও সড়ক দুর্ঘটনা সর্বোচ্চ শাস্তির প্রস্তাব দিয়েছে ১০ বছর। ভারতে এখনও শাস্তি রয়েছে ৬ বছর। আমাদের পরিবহন শ্রমিকা দেশের মানুষকে সেবা দিয়ে থাকে। আমাদের নিয়োগ পত্র নাই। কর্ম ঘন্টা নির্ধারণ নাই। মিল-কারখানার শ্রমিক ও আমলাদের বেতন বাড়লেও আমাদের বাড়েনি। শ্রমিকদের হাউস রেন্ট, মেডিকেল এলাউন্স নাই।

তিনি আরও বলেন, আজকে মালিক চাবি না দিলে কাল শ্রমিক বেকার। সরকারের দায়িত্ব হচ্ছে শ্রমিকদের এগুলো নির্ধারণ করে দেয়া। পরিবহন শ্রমিকদের উন্নয়ন হলে সমাজের উন্নয়ন হবে। পরিবহন শ্রমিকরা ভালো থাকলে এ সমাজের অর্থনীতি ভালো থাকবে৷ কোনো পরিবহন শ্রমিক অনৈতিক কাজে লিপ্ত হলে আমরা সঙ্গে-সঙ্গে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করে থাকি। ব্যক্তি অপরাধের দায় সংগঠন নিবে কেনো।

 

পরিবহন সেক্টরে শৃংখলা ফেরাতে তিনি কয়েকটি দাবি তুলে ধরেন। দাবিগুলো হলো:-

যেভাবে দক্ষ ও প্রশিক্ষিত চালক পেতে পারি-

১.  সড়ক পরিবহন শিল্পে একক প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার লক্ষ্যে সকল রোড ট্রান্সপোর্ট কমিটিতে (আরটিসি) রেজিষ্ট্রেশন প্রাপ্ত মালিকদের পুঞ্জের পরিবর্তে তাদের পুজিঁর পুঞ্জিভবন করে বেসরকারী কর্পোরেশন গঠন করতে হবে। প্রথমত বাস-মিনিবাস ও ট্রাক-ট্যাংকলরী-কাভার্ডভ্যান এই দুই প্রকার গাড়ির প্রতিটি আরটিসি রেজিষ্ট্রেশন প্রাপ্ত মালিকদের পুজিকে মালিকের শেয়ার হিসাবে গণ্য করতে হবে। গাড়ির মালিক হবে বেসরকারী কর্পোরেশন। শেয়ার হোল্ডারগণ পুজির অংশ অনুপাতে লভ্যাংশ পাবেন এবং তাদের দ্বারা পরিচালনা বোর্ড কর্পোরেশন পরিচালনা করবে।

২.  বর্তমানে রাইড শেয়ারিং এ্যাপস সার্ভিসে পরিচালিত উবার, পাঠাও প্রোগ্রাম এবং সাধারণ বাস-ট্রাক চালকদের মধ্য থেকে শিক্ষিত তরুণ ও যুবকদের বাছাই করা ব্যক্তিদের আধুনিক প্রশিক্ষণের মাধ্যমে নতুন করে প্রশিক্ষক তৈরী করতে হবে।

পূর্বের তৈরি করা প্রশিক্ষকদের মাধ্যমে প্রতিটি স্ট্যান্ড টার্মিনালে চালকদের ব্যপকহারে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে হবে। প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত চালকদের দ্রুত লাইসেন্স দেবার ব্যবস্থা করতে হবে। এই দায়িত্ব বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটিকে (বিআরটিএ) নিতে হবে।

৩.  নেশাগ্রস্থ শ্রমিকদের সুস্থ জীবনে ফিরে আনার জন্য তাদের মানসিক প্রনোদনার ব্যবস্থা ও চাপ সৃষ্টি করার লক্ষ্যে প্রতিনিয়ত ডোপ টেষ্ট করার ব্যবস্থা করতে হবে।

৪.  শ্রমিকদের মানবিক ও সামাজিক দায়িত্বশীল মানসিকতা সম্পন্ন চরিত্রের গুরুত্ব অনুধাবন করার জন্য প্রতিটি সংগঠনের সদস্য শ্রমিকদের মধ্য থেকে বাছাই করা ব্যক্তিদের বাৎসরিক সম্মাননা ও আর্থিক পুরষ্কার প্রদানের ব্যবস্থা করতে হবে।

৫.  আন্তঃজেলা সংযোগ সড়ক সংলগ্ন বাইলেইন তৈরী না করা পর্যন্ত সকল প্রকার গাড়ি আমদানী বন্ধ রাখতে হবে।

৬.  সমাজ ও অর্থনীতির জনগুরুত্বপূর্ণ সেবা খাতের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালনকারী অংশ হিসাবে শ্রমিকদের সাথে সমাজ ও জনগনের বিপরীত ধর্মী সম্পর্ক দূর করতে হবে। এজন্য সাংবাদিক, উকিল, শিক্ষক, বিশেষজ্ঞ, মালিক প্রভৃতি বিভিন্ন পেশার প্রতিনিধিগণের সমন্বয় মাসিক মতবিনিয়ম সভার মাধ্যমে সমস্যা চিহ্নিত করে সমাধান করতে হবে।  এ দায়িত্ব বিআরটিএ’কে পালন করতে হবে।

৭.  সড়ক পরিবহনের ন্যায় সেবাখাতকে ব্যবসায়ী দৃষ্টিভঙ্গির প্রাধান্য থাকলে সেবার মূল বৈশিষ্ট হারিয়ে ব্যক্তি মুনাফার প্রতিযোগিতা বেড়ে যায়। ফলে দূর্ঘটনাও বেড়ে যায়। এক্ষেত্রে বেসরকারী কর্পোরেশনকে সরকারী ভর্তুকি দিয়ে হলেও সেবা মূলক চরিত্রের বৈশিষ্ট প্রাধান্যে রাখতে হবে।

৮.  সর্বশেষ সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮’এ দুর্ঘটনা’কে অপরাধ হিসাবে মূল্যায়ন করে কিছু কিছু ধারায় সাজার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। আমরা জানি দূর্ঘটনা পরিকল্পনা করে ঘটে না।  অপরাধ পরিকল্পনা করে হয়। শ্রমিকদের অপরাধী হিসেবে চিহ্নিত করার উক্ত ধারা সমূহ সংশোধন করতে হবে।

৯.  যে কোন পেশার গুরুত্ব দায়িত্ব ও মর্যাদা সচেতন করা এবং প্রতিনিয়ত মনিটরিং করা খুব প্রয়োজনীয় বিষয়। এটা নিয়মিত করতে হবে।



     সাক্ষাতকার
ডা. মুরাদের এমপি পদ থাকা নিয়ে যা বললেন আইনমন্ত্রী
আদালত যা সিদ্ধান্ত দেবেন, মেনে নেব: অর্থমন্ত্রী
দলীয় লেজুড়বৃত্তির প্রভাবে মেধাবীরা পরিণত হচ্ছে দুর্বৃত্তে-বলছেন, রাজনীতি বিশ্লেষকরা।
‘ঢাকাকে বাসযোগ্য আধুনিক নগরীতে রূপান্তরিত করতে হবে’- মেয়র আতিকুল ইসলাম।
সমাজ উন্নয়নে ডাক্তার ও মাস্টার অবহেলিত হলে,শিক্ষা ও স্বাস্থ্য উন্নয়ন বিঘ্নিত হবে , কোহিনূর রহমান কেয়া
কেন আত্মহত্যার চেষ্টা করলেন ছাত্রলীগ নেত্রী
ইশতেহারে পরিবহন শ্রমিকের অধিকার চাই
গান শোনার পাশাপশি মানুষ দেখতেও চায়
ঢাকা-৬ কে সবুজায়ন করতে চায় সানি মাহতাব
  সর্বশেষ
কু-প্রস্তাবে রাজী না নুরুন নাহারের উপর প্রাণঘাতি হামলা-রক্তাক্ত যখম-স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের মামলা নিতে অস্বীকৃতি ।
বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন-আদর্শের মৃত্যু ঘটাতে পারেনি ঘাতকরা: প্রধানমন্ত্রী
জাতীয় শোক দিবস: ব্যানার-পোস্টারে ব্যতিক্রমী যুবলীগ
বঙ্গবন্ধু হত্যার সবচেয়ে বড় সুবিধাভোগী জিয়া ও তার পরিবার: তথ্যমন্ত্রী
বিএনপির মিছিল থেকে পেট্রোল বোমা মারার শঙ্কায় জনগণ: তথ্যমন্ত্রী
ভাষা শহীদদের প্রতি রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
শান্তির ভাষায় কথা বলার জন্য বিএনপি’র প্রতি আহবান জানিয়েছেন-ওবায়দুল কাদের
অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে ভাষা শহীদেরা প্রেরণার উৎস : ফখরুল

Chief Editor and publisher : Moynul Islam Milon

Cheif Editorial Adviser : Md. Munir Hossain (JM)


Kazi Emdadul Hoque(Editor) Sara Bangla

Kazi Obaidul Hoque(Editor) Finance
 
  
Dynamic SOlution IT Dynamic POS | Super Shop | Dealer Ship | Show Room Software | Trading Software | Inventory Management Software Computer | Mobile | Electronics Item Software Accounts,HR & Payroll Software Hospital | Clinic Management Software Dynamic Scale BD Digital Truck Scale | Platform Scale | Weighing Bridge Scale Digital Load Cell Digital Indicator Digital Score Board Junction Box | Chequer Plate | Girder Digital Scale | Digital Floor Scale